বাজার গরম

বাজার ও গরম কাহিনী

বাজার গরম আছে অনেক দিন ধরেই। পরিচিত অপরিচিত যার সাথেই কথা হয় সে ই জানায় – বাজার গরম। বাজার গরম হলেও আনন্দবাজার খবর ছাপে নি। তার কি এসে যায়? সে তো খোঁজে তাজা খবর, গরম গরম খবরের বাজার। শেয়ার বাজার। চাকুরী বাজার। বানিজ্য আর শিল্প বাজার। বিশ্ব বাজার। এদিকে চাকুরেরা খোঁজে শ্রম বাজারের গরম খবর। সেই বাজারে গরম গরম কিছু নেই। হিম শীতল শির দাঁড়া বেয়ে নামে, চাকুরীর কথা এলে। বাজার ও গরম কাহিনীতে আজ থাকছে আরো কিছু গরমের আলাপ।

কোথায় এবার কী কী গরম চলুন দেখা যাক

গরম এবার সব কিছুই। ঠান্ডা পানির দামটা গরম। নরম গদির চেয়ার গরম। পোড়া কপালীর কপাল গরম(জ্বর হয়েছে!)। মেজাজ এবার সবার গরম(বেতন বাড়ে নি)। গরম বাজার, গরম বাতাস।  বাসের চাকা ফাটছে কারন, রাস্তাটা যে ভীষন গরম। পার্টি গরম। কুলি গরম। রেললাইনের খুঁটি গরম। কাচাঁ বাজারের রেটটা গরম। বাজারটা এবার অনেক গরম।

ঘরে গরম, বাইরে গরম। সুন্দরীদের মনটাও গরম। নরম সুরে বাজায় বাঁশি গরম সুরে গায়। সংগীতের বাজার গরম হয় নি এবার। ঠান্ডা জ্বরে কাঁপছে মঞ্চ, বঞ্চিতদের জন্য। সিনেমাওয়ালা রাঁধছে সেমাই দর্শকের বাজার,পরম শূন্য।

গরম এবার শিক্ষা বাজার, পড়ার জন্য বেচে সবাই জমিজমা আরো কিছু। জমির বাজার বেশি নিচু। ফসল ফলে কৃষক ঘামে। সব শষ্যই বেজায় চড়া, গরম বাজার। শরম সবার। কিনতে গেলে মলা ঢেলা। ইলিশ মাছের বাজার কোথায়, মাছ ব্যাপারী মারে ঠেলা।

ফলের রাজা প্রজা সবাই, সমান মূল্যে সেবা জমাই। বাজার গরম করে তারা পচে না কোন দিন। আজ বাজারে এলেই মশায় কিছু তুলে নিন!

খালি হাতে বাসায় গেলেন? গিন্নি গরম চাউনি মেলে দেখেও না দেখার ভান করে। ছেলে মেয়ে একই দশা। সবার মনে একই আশা। ভালবাসা, খালি হাতে হয় না রে বাপ। যদি পার মর দিয়ে লাফ। তবু মোদের চাই যে কিছু, তবেই পিছু নিতে পারি।

গরম দেশে শীত নামে না। চোখ মেলে না গাছের পাতা। জোয়ার ছাড়াই পানির স্রোতে গা ভাসায় কত জনতা। বৈশাখে খায় ইলিশ দামের দিকে চোখ মেলে না। একদিনই তো ব্যাপার কী আর। ঝাটকা মেরেই স্বাদ মিটাই।

শূন্য জমি, বাজার শূন্য। ভিন্ন স্বাদের নানান পন্য। বাজার ভিন্ন, আমরাও সবে ছিন্নভিন্ন।