শীতের দিনের মজার পিঠা

শীতের দিনের মজার পিঠা আর নতুন জামাই নতুন বউ

শীতের দিনের মজার পিঠা আর নতুন জামাই নতুন বউয়ের জন্য পিঠার আয়োজন হয়ে থাকে গ্রামে গ্রামে কিংবা অনেক শহরেও। পিঠার আয়োজন শুরু হয় শীত এলে। তবে এর আগেও শুরু হতে পারে। যেমন সারা বছর আমাদের দেশে চিতল পিঠা পাওয়া যায়। একে অনেকে আবার চিতই নামেও ডাকেন। ঘুরে ফিরে একই আয়োজন- পিঠা। বাংলাদেশের পিঠা খেয়ে অনেক বিদেশীও শেষে বলতে বাধ্য হন- আহা দারুন তো! পিঠা মানেই ভাঁপা পিঠা পুলি পিঠা কিংবা পাটি সাপটা পিঠা নয়। পিঠা মানে অনেক কিছু। কেক নামে যেটা দিয়ে আমরা জন্মদিন কিংবা বিবাহ বার্ষীকি উদযাপন করি সেটাও পিঠা-ই। তবে দেশী পিঠা নয়। এগুলো বিদেশী।

বাংলাদেশে ডিম আর চালের গুড়া দিয়ে অদ্ভুত এক রকমের পিঠা হয়। এটা আমার মা খুব ভাল বানায়। এবার ঢাকায় বেড়াতে এসে তাঁর ছেলের বউকে শিখিয়ে দিয়ে গেছেন। আমি খেয়ে দেখি, আহা আগের দিনে মানে ছেলে বেলায় এত মজা পাই নি। এবার পেয়েছি। ডিমের সেই পিঠা বেজায় স্বাদের। একে বিস্কিটের ন্যায় খাওয়া যায়। দিনের পর দিন। কিন্তু আমাদের চার সদস্যের ফ্যামিলীতে এ কয়টা পিঠা খুব বেশি সময় টিকল না। শেষ। প্লাস্টিকের কৌটা খালি।

শীতের আরো একটা মজার ব্যাপার হচ্ছে, বাংলাদেশে শীত এলেই বিয়ে বেড়ে যায়। এটাই নাকি বিয়ের মৌসুম! নতুন জামাই শশুর বাড়ি এলেই চলে পিঠা খাওয়ানোর ধুম। আমার শশুর বাড়িতে আমাকে অনেক পিঠা খেতে দেয়া হয়েছিলো। পিঠার পরিমান আর সাইজ দেখেই পেট ভরা, খাব কি। তার মধ্যে দেখলাম বেশ আকাবাকা পিঠা, কারু কাজ করা পিঠা। দেখে প্রথমে থমকে গিয়েছিলাম। এত কষ্ট করে একেকটা পিঠা বানানোর দরকার কী? কিন্তু পরে শ্যালিকার মারফতে জানতে পারলাম। এসব পিঠার একটা ডাইস থাকে। সেই ডাইসে আটা আর উপাদান সাজিয়ে যখনি তেলের মধ্যে ভাজা হয় তখন সেটা প্রতি মিনিটে বেশ কয়েকটা প্রোডাকশন হয়ে যায়। বড়ই অদ্ভুত আর সহজ কাজটি।

এবারের শীতেও অনেক বিয়ে হয়েছে। আমার আশেপাশে অনেকের কিংবা অনেকের আত্মীয়ের। সেসব বিয়েতে পিঠার আয়োজন দেখলাম অসামান্য।ইতিমধ্যে কয়েক জনে কিছু পিঠা আমাদের জন্যও পাঠিয়েছেন। তাদের পিঠা খেয়ে আমাদের আনন্দের আর সীমা নেই।

পিঠার সাথে মানুষের ভোজনের ব্যাপার জড়িত। তাই হয়ত পিঠার এত কদর। এত আধুনীক যুগেও এসেও পিঠা থেমে যায় নি। আরো আধুনীক হচ্ছে। ডাইস হয়ে নিজে মানুষের ভক্ষনে সহায়তা করছে। একদিন এই পিঠা হয়ত আরো উন্নতি করবে। তখন দেখা যাবে পিঠা বানাতে লাগবে মাত্র কয়েক সেকেন্ড! সেটা বিস্কিটের পরিবর্তে জায়গা করে নিবে আপামর জন সাধারনের! যদিও অনেকেই এখন বার্গার খেয়ে পিঠাকে ভুলে যেতে চান। শীতের দিনের মজার পিঠা পেয়ে বার্গার খাওয়া লোকেরাও বার্গার ভুলে যান।