রূপ সভ্যতায়

রূপ সভ্যতায়

নারী পুরুষের মাঝে কিছু মিল অবশ্যই আছে। তার মধ্যে একটি হল, একে অন্যের প্রতি আকর্ষন। এই মিলের কারনেই সৃষ্টি সংসারের এত বিস্তৃতি। মানব সভ্যতার ভিড় দিন দিন বেড়েই চলেছে। একসময়ের মোট জনসংখ্যা এসে গেছে প্রায় ৭০০কোটির কাছে।

সভ্যতার শুরু যেভাবে হয়েছিল এখন আর সেই অভয়ব নেই। বদলে গেছে। একথা সবাই মেনেছেন যে শুরুটা একজোড়া মানুষে হয়েছিল যার একজন নারী আরেকজন পুরুষ। তখন এদের চেহারা এবং গড়ন ঠিক এমন ছিল না। কারো কারো মতে এরা ছিল শিল্পাঞ্জির মতো, আবার কারো মতে বানরের মতো। তবে দুজনেই যে ছিলো এখনকার সবচে’ কুতসিৎ মানুষের চেয়েও অসুন্দর তা বোধ হয় সঠিক।

এবার আসি মুল কথায়, যদি সেই অসুন্দর দুজন মানুষ নিজেদের প্রেম ভালোবাসায় এতবড় একটি সভ্যতার সৃষ্টি করে ফেলতে পারে তবে এই যুগে মানুষ কেন সাদা কালো, আর রংগিন এসব নিয়ে মাতোয়ারা?

বাহ্যিক সৌন্দর্য্যের চারপাশে বসবাস করেন ৭০০কোটির ৮০% , তার কারন মনষ্কামনা। মানুষের মনের খায়েশ। এই ইচ্ছাশক্তি যেমন একটি সুন্দর সভ্যতার সুচনা করেছে তেমনি একটি সুন্দর সভ্যতার ধ্বংশও সে করে ছাড়বে। তার একটি প্রমান হল পরমানু বোমা। ক্ষমতা, কিসের জন্য? বিলাসজাত দ্রব্য তার মাঝে কি কি আছে? এসব জানা সবার। তবে সৌন্দর্যের কমার্সিয়াল দিক না ভাবলে ভুল হবে। যারা অনেক পড়াশুনা করেন, তারা হয়ত জানেন যে নারীর রূপ আর সেবা আজকাল বৈদেশিক মুদ্রার স্টক পর্যন্ত বাড়াচ্ছে। এসব কিছু কারনেই হয়ত ৯০ভাগেরো বেশি নারী নিজেকে সবচে বেশি সুন্দর করে প্রেজেন্ট করতে চায়। যেমন চেয়েছিল আগেকার দিনের রাজদরবারের নাচনেওয়ালীরা।

কমার্সিয়াল ব্যাপারের আরো কিছু জানানো আবশ্যক। সৌন্দর্যের বাজার যখন পুরো চাঙ্গা হয়ে উঠল, মানুষ যখন এককথায় সৌন্দর্য এর পুজারী হয়ে গেল, ভালবাসা, সভ্যতা টিকিয়ে রাখার আবশ্যিক বন্ধন(বিয়ে/সংসার) যখন সবকিছুকে ঘিরে এই সৌন্দর্য আর রুপচর্চার জয়জয়কার তখন ব্যবসায়ীরা খুজে পেল জীবনে নতুন কিছু অধ্যায়। শুরু হয়ে গেল প্রশাধনী সামগ্রীর বানিজ্য। আজকাল কিছু পন্যের বিজ্ঞাপনে বলা হয়- চাকুরীর প্রথম শর্তই হল সৌন্দর্য্য। রূপ। নারীর রূপ। নারীকে সবাই অগ্রাধিকার দেয়, আদুরে হাত বাড়িয়ে দেয়। কিন্তু প্রয়োজনমতো। প্রয়োজন শেষ হলে আবারো স্বাভাবিক। পুরূষের বেলায় এই রূপ আর সৌণদর্য্য ততদুর এগোতে পারে নি। কমার্সিয়ালভাবে এরা পিছিয়ে গেছে। তাই রঙ ফর্সাকারী ক্রীম বের হয়েছে পুরূষের জন্যে অনেক অনেক পর।

(এই নিয়ে আরো বিস্তারিত লিখছি…)