জীবনের কত রঙ! কত স্টাইল!

জীবনের হাজারো রুপ,  আছে রঙ কত খেয়ালে হয়ে যাচ্ছে পরিবর্তন। জীবনের পরিবর্তন। কেউ জানে এই মানুষেরা নাকি বানরের আপডেট ভার্সন। আবার অনেকের মতে তা নয়। সে যাই হোক না কেন প্রাচীন এই জাতি আজ অনেকটাই পরিবর্তনের গন্ডিটাকেও ছাড়িয়ে চলে গেছে অনেক সামনে। তাই যুক্ত হয়েছে হাজারো রঙ ঢং আর চাকচিক্যের। চলে এসেছে হাজারো স্টাইল।

এসবের মাঝে খুজে পাওয়া যায় বাংলার জীবন। বাংগালীর জীবন স্টাইল পরিবর্তিত হয়েছে যুগে যুগে। পোশাক আশাক আর চারিত্রিক দিক বিবেচনা করলে ইউরোপীয় জীবনের চেয়ে বাংলাদেশীদের জীবনের পরিবর্তন হয়েছে খুব স্লো মোশনে। এর কারন কী? বিশ্লেষকগনের মতে, এ প্রান্তের মানুষের সুবিধা বঞ্চিত হয়ে বেঁচে থাকা আর প্রাকৃতিক দস্যু আচরন এর সাথে যোগ হয়েছে রাজনৈতিক অনিয়ম। এসব কিছু কারনে প্রতিযোগীতার এই মিছিলে পিছিয়ে গেছে স্বয়ং পশ্চিম বঙ্গের সাথেই। পশ্চিম বাংলার জন গোষ্ঠীরা যোগাযোগ খাতে ভাল উন্নয়ন পেয়েছেন এবং তাদের জীবনের রঙ আজ রংগীন।

চুলের বাহার, ফ্রেন্স কার্ভ দাড়ি আজ পুরোনো হয়ে গেছে। তাই তেলাপোকা স্টাইল আর নিত্য নতুন সব স্টাইল নিয়ে খুব মেতেছেন তরুন সমাজ। সেলোয়ার কামিজের মধ্যেই থাকছেন অনেকেই, তবে যোগ হয়েছে নতুন ফ্যাশন। টাইট ফিট না হলে চলবে না। মেকাপ এর খরচ বেড়েছে। তাতে কি আয় রোজগার বেড়েছে পাড়ার এক সময়ের বেকার মেয়েদের। তারা স্বাবলম্বী আজ কোন না কোন গার্মেন্টস অথবা ফ্রন্ট ডেস্কে কাজ করা মেয়েরা। টাকা রোজগার আগের চেয়ে সহজ হয়ে গেছে বলেই ব্যয় সহ সব কিছু গেছে বেড়ে।

সব মিলিয়ে যেটা দাঁড়ালো তা হচ্ছে, ফ্যাশন আর স্টাইল নিয়ে চিন্তিত নন এই যুগের মানুষেরা। এরা নিজেরাই তৈরি করে ফেলছেন স্টাইল।আমাদের ভুল গুলো। চুল দাড়ি আর পোশাকে ঢং সং আমাদের মাতিয়ে তোলে খুব সহজে। এটার ব্যপারে খুব পটু এই বাঙলাদেশি আমরা। তবু সাবধানতা দরকার আছে কিছুটা।